লন্ডনের দুর্ধর্ষ মাফিয়া গ্যাংদের দুর্দান্ত এক সিরিজ [রিভিউ]

গ্যাংস অফ লন্ডন: সিরিজের প্রথম পর্ব প্লে করার সাথে সাথে আপনার স্ক্রিনে অসংখ্য সারিবন্ধ সুউচ্চ ঝলমলে বিল্ডিং-এর ছবি ভেসে উঠবে। কিন্তু যেনতেনভাবে নয়, ১৮০° কোণে। ফাইলে কোনো ত্রুটি আছে কিনা বা প্লেয়ারে কোনো সমস্যা কিনা এমন চিন্তা যখন আপনার মাথায় উঁকি মারবে, ঠিক তখন আপনি পানির উপরে ও পানিতে দুক্ষেত্রেই বিল্ডিংগুলো চিত্র ভাসতে দেখবেন।

ততক্ষণে আপনি বুঝে গেছেন, ক্যামেরা উল্টে করে ধরা হয়েছিল। আরও কয়েক সেকেন্ড পর বুঝবেন, ক্যামেরা উল্টে করে ধরার কারণ এসব বিল্ডিং এর কোনো একটা থেকে উল্টো হয়ে ঝুলতে থাকা ব্যক্তির দৃষ্টিতে দৃশ্যটা কেমন হবে, সেটা তুলে ধরার চেষ্টা ছিল।

কিন্তু এখন কথা হচ্ছে, মানুষটা ওভাবে ঝুলছে কেন? তবে কি সে আত্মহত্যা করছে? উঁহু, তার প্রাণ বাঁচানোর কাকুতি মিনতি দেখে আপনি বুঝে যাবের বিল্ডিং ছাদের কিনারা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে থাকা দ্বিতীয় পুরুষটা তাকে ওভাবে দড়ি দিয়ে উল্টো করে ঝুলিয়ে রেখে শাস্তি দিচ্ছে৷ কিন্তু এটা তো কিছুই না৷ যখন ঝুলে থাকা মানুষটার হাজারো প্রাণ ভিক্ষা উপেক্ষা করে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হলো, ততক্ষণে আপনি বুঝে গেছেন, “খেলা শুরু হয়ে গেছে।”

ব্রিটিশ-অ্যামেরিকান সিরিজটি ইতিমধ্যেই নজর কেড়েছে ক্রাইম-থ্রিলারপ্রেমী দর্শকদের!

এখন কথা হলো, “খেলাটা জমেছিল কতটুকু?”
বলছিলাম, এ বছরে রিলিজ হওয়া সিরিজ ‘গ্যাংস অব লন্ডন’ এর কথা। স্কাই অ্যাটলান্টিক ও সিনেম্যাক্সের এই ব্রিটিশ-আমেরিকান সিরিজটি আমার দেখা এ বছরের অন্যতম সেরা সিরিজ।

এ বছর এর থেকে ভালো ক্রাইম ড্রামা অ্যাকশন সিরিজ আর একটাও আসবে বলেও মনে হয় না। বাড়িয়ে বলছি? মোটেও না।

‘গ্যাংস অব লন্ডন’ নামটা শুনেই তো বুঝতে পারছেন লন্ডনের অপরাধ সংঘদের নিয়ে সিরিজের প্লট গড়ে উঠেছে। ঠিক তাই। লন্ডনের মতো স্বপ্নের শহরে বহু বছর ধরে রাজত্ব করে আসা বিভিন্ন দেশের মাফিয়া গ্যাং ও তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক, বন্ধুত্ব, দ্বন্দ্ব ও সেই দ্বন্দের রেশ ধরে সৃষ্ট গ্যাং-গ্যাং যুদ্ধ নিয়ে সিরিজের গল্প সাজানো হয়েছে।

রক্তারক্তি দেখার অভ্যাস থাকলে, এই সিরিজ মিস দেয়া উচিত হবে না।

সিরিজের গল্প মূলত ওয়ালেস মাফিয়া পরিবারকে নিয়ে। এ পরিবারের কর্তা ও লন্ডনের সবথেকে ক্ষমতাবান ও বিত্তশালী মাফিয়া লিডার ফিন ওয়ালেসের আকস্মিক হত্যার মাধ্যমেই সিরিজের কাহিনী শুরু হয়। ফিনকে কে বা কারা হত্যা করেছে, তা নিয়ে তার বড় ছেলে শন ওয়ালেসের চুলচেরা অভিযান অন্যান্য গ্যাংদের সাথে শত্রুতা তৈরি করে।

আর এ অভিযানে তাকে সহযোগিতা করছিল তার মা মারিয়ান ওয়ালেস, তার বাবার বন্ধু ও ব্যবসায়িক কাজের সহায়ক এড ডুমানি। এড ডুমানি, তার ছেলে আলেকজান্ডার ডুমানি যে কিনা ওয়ালেস ফ্যামিলির হেড অব সিকিউরিটি, সবাই ফিন ও তার পরিবারের খুব বিশস্ত কর্মী ছিল।

ফিন মারা যাবার পর শনকে ফিনের জায়গায় বসিয়ে ব্যবসায়িক কার্যক্রম আগের মতো সচল করতে চাইলেও শনের একরোখা মনোভাব ও নিজের বাবার মৃত্যুর প্রতিশোধ নেবার তেজ লন্ডনের মাফিয়া গ্যাংগুলোর মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটায়। আর এভাবেই সিরিজ সামনে আগায়।

ও হ্যাঁ, শনের সাথে এ যুদ্ধে তার পাশে ছায়ার মতো আরো একজন থাকে, সে হলো এলিয়ট ফিঞ্চ। এলিয়টের পরিচয় সিরিজ দেখে জেনে নেওয়ার আমন্ত্রণ রইলো।

অভিনেতাদের দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্সে থ্রিল ছিল প্রতি পরতে!

বলে রাখা ভালো, সিরিজে কিন্তু লন্ডনে আস্তানা গেড়ে থাকা নানা দেশের নানা ধর্মের গ্যাংস্টারদের দেখানো হয়েছে। আলবেনিয়ান মাফিয়া, পাকিস্তানি ড্রাগ কার্টেল, কুর্দিশ মুক্তিবাহিনী, জ্যামাইকান ইয়ার্ডি, চীনা মাফিয়া ইত্যাদি বহু গ্যাংদের সম্মিলন দেখানো হয়েছে সিরিজে।

পুরা সিরিজটা একটা ঘোরে রাখার মতো। যেমন টানটান উত্তেজনায় ভরা কাহিনী, তেমনই হৃদপিন্ডে ঝড় তোলার মতো অ্যাকশন। শুধুই কি অ্যাকশন। এমন শ্বাসরুদ্ধকর মারামারি, কাটাকাটি, রক্তারক্তি কবে দেখেছি মনে পড়ছে না। এ সিরিজে প্রচুর ভায়োলেন্স আছে বলে রাখি।

কিছু কিছু দৃশ্যে তো একদম পিলে চমকে যায় বা গা গুলিয়ে আসে। এত পাশবিকতা, এমন হৃদয়বিদারক সব শাস্তি দেখে মাঝেমধ্যে আসলেই ভয় লেগেছে। আমি সাধারণত হরর মুভি দেখে তো ভয় পাই ই না, এমনকি নরমাল সিরিজের মার্ডার সিন দেখেও না৷ কিন্তু এ সিরিজে অনেক সিনে চোখ বন্ধ করে ফেলেছিলাম।

বিঞ্জ ওয়াচ দেয়ার জন্যও সিরিজটি পারফেক্ট!

এ সিরিজ না দেখে বসে থাকলে আসলেই অস্থির কিছু মিস করবেন। আমার জানা মতে, ইসাব নেই৷ তবে আমার কোনো সমস্যা নেই।

সিরিজের বড় চমক, শেলবিদের সেজো ভাই জন শেলবি। শন ওয়ালেস চরিত্রে ছেলেটা পুরা ফাটিয়ে দিয়েছে। আর মা হিসেবে ক্যাটলিন স্টার্ক মানে মারিয়ান ওয়ালেস বরাবরের মতোই তেজস্বিনী। অনেকে দেখলাম, পিকি ব্লাইন্ডার্সের সাথে এটার তুলনা করছেন। অন্যান্য পার্থক্য বাদ দিলাম, কিন্তু দুটার পটভূমি একদম আলাদা সময়ের, তাই মেলানো যুক্তিসঙ্গত নয়।

যাইহোক, আর কথা না, চটপট দেখে ফেলুন।

Show TitleGangs of London
Show StatusRunning
LanguageEnglish
GenreCrime, Action, Drama
Runtime53-93 Mins
Total Season1
Total Episodes9

নেটফ্লিক্সেস্ট্রেঞ্জার থিংস দেখেছেন তো? যদি কুইজ খেলতে ভালোবাসেন, তাহলে, এক্ষুণি ট্রাই করুন স্ট্রেঞ্জার থিংসের স্ট্রেঞ্জার কুইজ! এছাড়াও ডক্টর হু, লা কাসা ডি পাপেল, গেম অফ থ্রোন্স, ফ্রেন্ডস সহ আরও অনেক অনেক কুইজ তো আছেই!

You may also like...